বাসর রাতেই নববধূর জীবনে নেমে এলো চরম পরিণতি

বিয়ে নিয়ে প্রতিটি মানুষেরই নানা স্বপ্ন থাকে। বিয়ের দিনটি একজন নারীর জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিন বলাই বাহুল্য। বিয়ের পর প্রথম রাত অর্থাত্‍ বাসর/ফুলশয্যার রাত নবদম্পতির কাছে স্মরণীয় এক মুহুর্ত। আর এই মোহময় রাতেই ঘ’টে গেল চ’র’ম পরিণতি। নিজে হাতে স্ত্রীকে খু’ন করলেন স্বামী। ঘ’টনাস্থল ভারতের তামিলনাড়ু।

তামিলনাড়ুর তিরুভাল্লুরের পোন্নেরির বাসিন্দা নীতিভাসানের সঙ্গে গত বুধবার সকালে পরিণয় বন্ধনে আবদ্ধ হন সন্ধ্যা। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পাত্র-পাত্রী আগে থেকেই একে অপরের পরিচিত ছিল। রাতে নবদম্পতিকে এক ঘরে পাঠিয়ে বাড়ির লোকজন তখন শুতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এরমধ্যে সন্ধ্যার চিত্‍কার শুনতে পেয়ে সকলে ছুটে আসেন নববিবাহিত দম্পতির ঘরে। দেখতে পান রক্তা’ক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন বছর বাইশের সন্ধ্যা।

সন্ধ্যার মাথায় শা’বল দিয়ে আ’ঘা’ত করা হয়েছিল, আর তাতেই মৃত্যু হয় নববধূর। এদিকে স্ত্রীকে খু’ন করে ঘর থেকে বেড়িয়ে যান নীতিভাসানও। পরে বাড়ির কাছে একটি গাছে ফাঁ’স লাগানো অবস্থায় উ’দ্ধা’র হয় ২৮ বছরের বরের দেহ।

জানা যাচ্ছে, গত বছরই সন্ধ্যা ও নীতিভাসানের বিয়ে ঠিক হয়। চলতি বছর মার্চে তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। তবে লকডাউনের কারণে সেই বিয়ে পিছিয়ে গিয়েছিল। দেশে আনলক ওয়ান শুরু হওয়ার পর গত বুধবার তাই ঝুলে থাকা বিয়ে শেষপর্যন্ত হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সেদিন স্থানীয় এক মন্দিরে বসেছিল বিয়ের আসর। অনুষ্ঠান শেষে সকলেই বরের বাড়ি ফিরে আসেন।

এদিকে বিয়ের দিনেই কীকারণে নববধূকে স্বামীর হাতে খু’ন হতে হল তা এখনও বুঝে উঠতে পারছে না পুলিশ। কেনই বা নিজেকে শেষ করে দিলেন নীতিভাসান, তা নিয়েও দানা বাঁধছে র’হস্য। ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে ঘটনার ত’দ’ন্তও। পরিবার সূত্রে জানা যাচ্ছে, সেদিন রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান নীতিভাসান। বৃহস্পতিবার সকালে জানা যায়, নিজেও আ’ত্মঘা’তী হয়েছেন ওই যুবক।

Sharing is caring!