আমিরাতি সহায়তা প্রত্যাখ্যান করলো ফিলিস্তিন

ইসরায়েলি বিমানবন্দর ব্যবহার করে এবং ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় না করে সহায়তা পাঠিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। তবে এ সহায়তা প্রত্যাখ্যান করেছে ফিলিস্তিন। আজ বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাই কাইলা এ তথ্য জানান।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পাঠানো সহায়তা ফিরিয়ে দিলো ফিলিস্তিন

তিনি বলছেন, ফিলিস্তিন একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র। আমিরাতের উচিত ছিল তাদের সঙ্গে সমন্বয় করে ত্রাণ পাঠানো।

আল জাজিরা বলছে, এ ঘটনা থেকে মনে করা হচ্ছে যে, আরব আমিরাত পরোক্ষভাবে ইসরায়েলকে সমর্থন দিচ্ছে।

খবরে বলা হয়েছে, ইসরায়েলের তেলআবিবের বেন গুরিওন বিমানবন্দর ব্যবহার করে ওই সহায়তা পাঠিয়েছে আবুধাবি। এর পরই এ ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখালো ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমিরাতের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা ইতিহাদ এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট মঙ্গলবার ফিলিস্তিনিদের জন্য চিকিৎসা সহায়তা নিয়ে ইসরায়েলের ওই বিমানবন্দরে অবতরণ করে। আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের মধ্যে এটিই ছিল প্রথম বেসামরিক বিমান যোগাযোগের ঘটনা।

এ ব্যাপারে ইসরায়েলি সাংবাদিক ইতে ব্লুমেন্তাল টুইটার পোস্টে লিখেছেন, ইসরায়েলের মাধ্যমে ফিলিস্তিনিদের প্রতি আবুধাবির ভালোবাসা। এর সঙ্গে ওই ফ্লাইটের দুটি ছবিও পোস্ট করেন তিনি।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ইসরায়লের সঙ্গে আমিরাতি কর্তৃপক্ষের গোপন যোগাযোগ পুরোনো। তবে ফিলিস্তিনিদের সহায়তা পাঠানোর নামে ইসরায়েলি বিমানবন্দর ব্যবহারের মাধ্যমে দেশটি সেই গোপন সম্পর্ককে যেন প্রকাশ্যে আনার ইঙ্গিত দিচ্ছে।

Sharing is caring!