মসজিদের মাইকে মুয়াজ্জিনের বিশেষ ঘোষণা

মহামারি করোনার কারণে বিশ্বব্যাপী অনেকে দেশেই মসজিদে জামাআত স্থগিত ও সীমিত আকারে জামআত ও জুমআ চালু ছিল। আবার অনেকে দেশে জুমআ ও জামাআত চালু রয়েছে। দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানের বিশেষ আবেদনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে নামাজের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার জোহর থেকে মসজিদে নামাজ পড়ছে দেশের মুমিন মুসলমান।

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ও নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে অনেক মসজিদের মুয়াজ্জিন জুমআ ও জামাআতে নামাজ আদায়কারী মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে মাইকে ঘোষণা করেন। একটি এলান শুনি-
– বাড়ি থেকে সবাই ওজু করে মসজিদে আসবেন।
– বাড়িতেই সুন্নাত নামাজ আদায় করবেন।
– মসজিদে আসার সময় যার যার জায়নামাজ নিয়ে আসবেন।
– যারা হাঁচি-কাশি ও ঠাণ্ডাজনিত সমস্যায় আছেন তারা মসজিদে আসা থেকে বিরত থাকবেন।

মসজিদে জুমআ পড়তে আসা মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে মহল্লার সব মসজিদ থেকে এ মর্মে ঘোষণা করা হচ্ছে। সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় মসজিদ কমিটি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও জানান মুয়াজ্জিন।

উল্লেখ্য, বৈশ্বিক মহামারি করোনায় বিশ্বের অনেকে দেশের মসজিদে জামাআত বন্ধ বা সীমিত আকারে চালু রয়েছে। মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে বাংলাদেশের মসজিদগুলোতে জামাআত ও জুমআ আদায়ে করণীয় ঠিক করতে ধর্মমন্ত্রণালয় আলেম-ওলামাদের পরামর্শ গ্রহণ করে।

আলেম-ওলামাদের পরামর্শক্রমে মন্ত্রণালয় মসজিদের পাঞ্জেগানা জামাআতে ৫ জন এবং জুমআ জামাআতে ১০ জনকে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দিয়েছিল। পরবর্তীতে আলেম-ওলামা ও মুমিন মুসলমানের দাবি প্রেক্ষিতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুমআ ও জামাআত আদায়ের অনুমতি দেয়। মুসল্লিদের নিরাপত্তার স্বার্থেই মহল্লার মসজিদে মসজিদে মুয়াজ্জিন এ বিশেষ ঘোষণা দিচ্ছে।

Sharing is caring!