বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্তের রেকর্ড

মহামারী করোনাভাইরাসের দাপটে বিশ্ববাসী আজ কোনঠাসা। ২১৩ টি দেশ ও অঞ্চলে দাপট দেখাচ্ছে এই মারণব্যাধি। রোববারই ১ লাখ ৮৩ হাজার ২০ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মহামারী শুরু হওয়ার পর গত ২৪ ঘণ্টায় এটাই সর্বোচ্চ শনাক্তের ঘটনা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এই তথ্য জানিয়েছে।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, এদিন উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকাতেই শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ১৬ হাজার। এর মধ্যে ব্রাজিলেই রোববার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫০ হাজারের বেশি।
এর আগে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ শনাক্ত ছিল ১৮ জুন, ১ লাখ ৮১ হাজার ২৩২ জন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, করোনায় আক্রান্ত শনাক্তের মধ্যে শীর্ষ স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। সেখানে একদিনে ৫৪ হাজার ৭৭১ জন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এরপরই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে ৩৬ হাজার ৬১৭ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, সোমবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে বিশ্বে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯ লাখ ৫০ হাজারের বেশি মানুষ। মারা গেছেন ৪ লাখ ৬৮ হাজারের বেশি।
তবে বিশ্বে করোনাভাইরাসে প্রকৃত আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।
আর করোনাভাইরাসে মৃত্যু ও আক্রান্তের হিসেব রাখা আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ওয়াল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, সোমাবার বেলা পৌনে ১ টা পর্যেন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯০ লাখ ৫২ হাজার ৫৯৮ জন। আর মারা গেছেন ৪ লাখ ৭০ হাজার ৮৪৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৮ লাখ ৪২ হাজার ৩০৬ জন।
করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিবেশী দেশ ভারতে হু হু করে বেড়েই চলেছে। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত ১ লাখ ২০ হাজারের সীমা পার করেছে বহু আগেই।
ব্রাজিল, রাশিয়া ও ভারতে যেমন আক্রান্ত বেড়ে চলেছে, ঠিক সেভাবেই দক্ষিণ আমেরিকার দেশ মেক্সিকোয় মৃতের সংখ্যা বেড়ে চলেছে।
গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম দেখা দেওয়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৩টি দেশ। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Sharing is caring!