গার্মেন্টস কর্মীদের দুঃসংবাদ দিল বিজিএমইএ অধিদপ্তর

দেশে বিজিএমইএ’র আওতায় এক হাজার ৯২৬টি তৈরি পোশাক কারখানা চালু রয়েছে। এসব পোশাক কারখানার শ্রমিকদের মে মাসের বেতন-ভাতা এক হাজার ৭৫৭টি কারখানা শ্রমিকদের পরিশোধ করলেও এখনও ১৬৯টি কারখানার শ্রমিক বেতন-ভাতা পাননি।

বৃহস্প‌তিবার এ তথ্য জানিয়েছে পোশাক কারখানার মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতি। বিজিএমইএ বলছে, এক হাজার ৯২৬টি কারখানার মধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় রয়েছে ৩৩৩টি। এর মধ্যে বেতন দিয়েছে ২৮৬টি প্রতিষ্ঠান।

গাজীপুরের ৭১৩টি কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ৮৬৮টি, সাভার-আশুলিয়ায় ৪১২টির মধ্যে বেতন দিয়েছে ৩৯২টি, নারায়ণগঞ্জে ১৯৮টি কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ১৮৯টি, চট্টগ্রামে ২৫২টি কারখানার মধ্যে ২০৯টি এবং প্রত্যন্ত এলাকার ১৮টি গার্মেন্টসের মধ্যে ১৩টি গার্মেন্টসের মালিক শ্রমিকের বেতন পরিশোধ করেছেন।

সব মি‌লিয়ে মে মাসের বেতন প‌রিশোধ করেছে চালু থাকা ৯১ শতাংশ বা এক হাজার ৭৫৭টি তৈরি পোশাক কারখানা। তবে ৯ শতাংশ অর্থাৎ ১৬৯টি কারখানার শ্রমিকদের বেতন ১৮ জুন পর্যন্ত পরিশোধ করেননি মালিকরা।

জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে রফতানিমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই প্যাকেজ থেকে উৎপাদনের ন্যূনতম ৮০ শতাংশ পণ্য রফতানি করছে এমন সচল প্রতিষ্ঠান সুদবিহীন সর্বোচ্চ দুই শতাংশ হারে সার্ভিস চার্জ দিয়ে ঋণ নিতে পারছে।

Sharing is caring!