দুই পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারী-শিশু ও পুলিশসহ অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন।

গুরুত্বর আহত অবস্থায় বেশ কয়েকজনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ আনতে পুলিশ প্রায় ৮০ রাউন্ড শর্টগান নিক্ষেপ করে।

বৃহস্পতিবার (৭ মে) সকালে উপজেলার জলসুখা ইউনিয়নের নোয়াগড় গ্রামে ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ চলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সাবেক ইউপি সদস্য (মেম্বার) শাজাহান এবং আক্তার মিয়া গংদের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধের জেরে গত এক মাস আগেও দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময়ও বিপুল সংখ্যক লোকজন আহত হয়।

এদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে আবারও উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এতে উভয় পক্ষের নারী-শিশুসহ অন্তত অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়। গুরুত্বর আহত অবস্থায় বেশ কয়েকজনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ঘন্টাব্যাপী চেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ সময় পুলিশ প্রায় ৮০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (আজমিরীগঞ্জ সার্কেল) মো. শেখ সেলিম বলেন, ‘খবর পেয়ে আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ৮০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি শান্ত করে। এ ঘটনায় স্থানীয়দের পাশাপাশি ৫ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। এছাড়া বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Sharing is caring!