মাছ- মাংসেও করোনার উপস্থিতি, দাবি গবেষকদের

চীনের উহান শহর থেকে শুরু হওয়া করোনা ভাইরাস সেখান থেকে বিদায় নিলেও। এবার দেশটির রাজধানী বেইজিংয়ে শুরু হওয়া সংক্রমণের উৎস সম্পর্কে মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছে চীন। দেশটির রোগ প্রতিরোধ ও নিরাময় কেন্দ্র (সিডিসি) বলছে, সামুদ্রিক মাছ ও মাংসের একটি পাইকারি বাজার থেকে ছড়িয়েছে সংক্রমণ। সংস্থাটির মতে, মাছ-মাংসের বাজারের তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা করোনা ভাইরাসের জন্য খুবই সহায়ক।

সিডিসি’র প্রধান কর্মকর্তা উ জুনইয়ো বলেন, প্রাথমিক তদন্ত শেষে এটাই নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, শিনফাদি বাজারের সামুদ্রিক খাবার ও জলজ পণ্য বিক্রেতাদের মধ্যে প্রথম করোনা সংক্রমিত হয়। বাকিরা মাংস বিক্রেতা। তবে সামুদ্রিক মাছের বাজারের কর্মীদের মধ্যে অন্যদের আগে করোনা ছড়িয়েছে। এদিকে মাছ-মাংসেও করোনাভাইরাসের উপস্থিতি থাকার দাবি করেছে সিডিসি। বলছে, শিনফাদি বাজারের মাছ-মাংসেও মিলেছে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি। বাজারে কারও মাধ্যমে এ সংক্রমণ ছড়িয়েছে, নাকি কোনো সামুদ্রিক প্রাণি থেকেই সরাসরি সংক্রমণ হয়েছে- তা নিয়ে এখন গবেষণা চলছে। এরইমধ্যে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বেইজিংয়ের ৮০ শতাংশ মাছ-মাংস সরবরাহ করা বাজারটি।

Sharing is caring!