সুখবর: মানবদেহে প্রয়োগ শুরু হচ্ছে আরো একটি ভ্যাকসিনের

জার্মানভিত্তিক বায়োটেক কোম্পানি কিউরভ্যাক তাদের প্রস্তুতকৃত একটি নমুনা ভ্যাকসিন মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু করতে যাচ্ছে। ভ্যাকসিন নিয়ে এটি জার্মানির দ্বিতীয় গবেষণা, যা এই ধাপে প্রবেশ করেছে। কিউরভ্যাক কর্তৃপক্ষের আশা, এই ভ্যাকসিন ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে পাওয়া যাবে।

ডয়চে ভেলের বরাতে জানা যায়, কিউরভ্যাক কোম্পানিটি জার্মানির ব্যাডেন-উর্টামবার্গ প্রদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত তিউবিনেজন শহরে অবস্থিত। তাদের তৈরিকৃত নমুনা ভ্যাকসিন প্রথম ধাপে ১৬৮ জন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তির ওপর প্রয়োগ করা হবে।

জার্মানির ভ্যাকসিন নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ পল এরলিচ ইনিস্টিটিউট (পিইআই) বলছে, কিউরভ্যাক মানবদেহে যে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু করছে তার প্রথম ধাপ শেষ হবে দেড় মাসে। দ্বিতীয় ধাপে তা শুরু হবে সেপ্টেম্বরে।

পিইআই আরো বলছে, প্রাথমিক গবেষণায় এই ভ্যাকসিনটি ভালো ফলাফল দিয়েছে। যার কারণে ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ের আগেই এটি পাওয়া যেতে পারে।

এই ভ্যাকসিন গবেষণা সুরক্ষিত ও আন্তর্জাতিক ফাঁদ থেকে কিউরভ্যাককে বাঁচাতে পদক্ষেপ নিয়েছে জার্মানির অর্থ মন্ত্রণালয়। তারা এই কোম্পানিকে ৩০০ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি টাকায় ২৮৬ কোটি টাকার বেশি) দিয়ে ২৩ শতাংশ মালিকানা কিনে নিয়েছে। এতে করে বাইরের কোনো কোম্পানি এসে কিউরভ্যাককে কেনার চেষ্টা চালাতে পারবে না।

Sharing is caring!