আল-কুরআন পড়তে পড়তে এক হাফেজের ইন্তেকাল

আল-কুরআন পড়তে পড়তে এক মিশরীয় বৃদ্ধ হাফেজ ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। পবিত্র কুরআনে হাকিমের বিশেষ একটি আয়াত পাঠ করতে করতে মিশরীয় ওই বৃদ্ধ হাফেজ নিজ বাসাতেই ইন্তেকাল করেছেন। তিনি মিশরের আসনা শহরের আকসার জেলায় বসবাস করতেন। -আল জাজিরা

আব্দুল আ’তি আলি আব্দুল জালিল নামের ওই হাফেজে কুরআন ইন্তেকালের আগমুহূর্তে সূরা আম্বিয়ার কয়েকটি আয়াত পাঠ করছিলেন। তার পঠিত সর্বপ্রথম আয়াতের অর্থ: “এবং স্মরণ করুন আইয়্যুবের কথা, যখন তিনি তার পালনকর্তাকে আহ্বান করে বলেছিলেন, আমি দুঃখকষ্টে পতিত হয়েছি এবং আপনি দয়াবানদের চাইতেও সর্বশ্রেষ্ট দয়াবান”।

ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ারের মাধ্যমে বয়োবৃদ্ধ এই হাফেজের ছেলে মুহাম্মাদ আব্দুল আ ’ তি পিতার সৌভাগ্যময় বিদায়ের কথা জানান। তিনি বলেন , জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে কুরআনে কারিম পড়ার মাধ্যমে মহান আল্লাহর সাহায্য চেয়ে পরলোকগমন সত্যি সৌভাগ্যের – আল্লাহ তাকে জান্নাত দান করুন ।
কাদের ৫৭ কোটি টাকা ঘুষ দিলেন সাংসদ পাপুল?এবার কুয়েতে একজন আমলাসহ তিনজনকে ২১ লাখ দিনার (বাংলাদেশি টাকা ৫৭ কোটি ৫৪ লাখ) ঘুষ দিয়েছেন লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে কাজী শহিদ ঘুষ গ্রহণকারীদের নাম জানিয়েছেন।
এরা হলেন- কুয়েতের একটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত, অন্যজন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক আমলা আর শেষজন দেশটির এক নাগরিক। কুয়েতের ইংরেজি দৈনিক আরব টাইমস গতকাল সোমবার তদন্ত কর্মকর্তাদের সূত্রে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
কুয়েতের তদন্ত কর্মকর্তারা নিশ্চিত হয়েছেন, বাংলাদেশের আটক এমপিকে মদদ দিয়েছেন দেশটির অন্তত সাতজন বিশিষ্ট নাগরিক। ওই সাতজনের মধ্যে কুয়েতের সাবেক ও বর্তমান তিন এমপিও রয়েছেন। লক্ষীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে মদদদানকারীদের পরিচয় প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন কুয়েতের এমপিরা।
কুয়েতের দুর্নীতি দমন কর্তৃপক্ষ নাজাহা জানিয়েছে, মানব পাচার নিয়ে বাংলাদেশের এমপিদের বিরুদ্ধে পাবলিক প্রসিকিউশন যে তদন্ত চালাচ্ছে, তা নিয়ে সংস্থাটি পরের ধাপের তদন্ত চালাবে।

Sharing is caring!