শুরু হচ্ছে ৩০০ টাকার ভ্যাকসিনের ট্রায়াল

যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থিত ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকরা করোনাভাইরাসের একটি ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছেন। যার প্রতি ডোজের মূল্য হবে ৩ পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩০০ টাকার কিছু বেশি)। ল্যাব টেস্টের পর্যায় অতিক্রম করে ভ্যাকসিনটি এখন মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অপেক্ষায় আছে। চলতি সপ্তাহে সেই প্রক্রিয়া শুরু হবে বলা জানা যায়।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এটি যুক্তরাজ্যে করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে দ্বিতীয় বড় গবেষণা। প্রথমটি অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ভ্যাকসিনের গবেষণা, যা ইতোমধ্যে মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের প্রথম ধাপ অতিক্রম করেছে। সফলতা মেলায় চলতি বছরই ওই ভ্যাকসিনের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হওয়ার কথা। সেই তুলনায় বেশ পিছিয়ে আছে ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষণাটি।

ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকরা আরএনএ ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছেন। এটি করোনাভাইরাসের মুকুট সদৃশ প্রোটিনের ওপর কার্যকর প্রভাব বিস্তার করে তা নষ্ট করে দেয়, যে প্রোটিনের কারণেই করোনাভাইরাস এত বেশি সংক্রামক। জানা যায়, মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগে যে কয়টি ভ্যাকসিন এগিয়ে আছে তার মধ্যে এটিই সবচেয়ে কম মূল্যের। একটি ডোজের মূল্য হবে ৩ পাউন্ড।

আরব নিউজের প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ভ্যাকসিনটির মূল্য কম হওয়ার অন্যতম কারণ এটি আরএনএ ভ্যাকসিন, যা নিজ থেকে অভিযোজিত হয়ে বৃদ্ধি পেতে থাকে। ফলে এক শিশি থেকেই বেশ কয়েক ডোজ ভ্যাকসিন পাওয়া সম্ভব। গবেষকরা বলছেন, প্রথম দফায় তারা ১২০ জন মানুষের ওপর এই ভ্যাকসিনের প্রয়োগ করবেন। সফলতা পাওয়া গেলে পরবর্তীতে ছয় হাজার মানুষের ওপর তা প্রয়োগ করা হবে। চলতি সপ্তাহেই শুরু হচ্ছে সেই প্রক্রিয়া।

Sharing is caring!