দারুণ সুখবর মিলল বাংলাদেশের

মৌসুমি বায়ু যথাসময়ে বাংলাদেশে চলে আসায় একদিকে যেমন বর্ষা শুরু হয়ে গেছে, অন্যদিকে তেমনি বাংলাদেশে পঙ্গপালের হানা দেওয়ার আশঙ্কাও কমে এসেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার এক আলোচনা সভায় জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) এবং আন্তর্জাতিক ভুট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।সভায় এফএও’র জ্যেষ্ঠ পঙ্গপাল পর্যবেক্ষণ কর্মকর্তা কেথ ক্রিসম্যান মূল বক্তব্য তুলে

ধরেন। অনলাইনে অনুষ্ঠিত ওই সভায় বাংলাদেশের কৃষি বিশেষজ্ঞ ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।কেথ ক্রিসম্যান বলেন, বাতাসের প্রবাহ বাংলাদেশকে এই দফায় পঙ্গপালের হামলা থেকে রক্ষা করে দিয়েছে। পঙ্গপাল সাধারণত মরুভূমি এলাকার পতঙ্গ। অনুকূল

আবহাওয়া থাকায় এটি চীন হয়ে পাকিস্তান দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। সেখানকার উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের রাজ্যগুলোর ফসলের ক্ষতি করে। এটি দ্রুত ভারতের পূর্বাঞ্চলের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ, আসাম ও ওডিশার দিকে এগোচ্ছিল। সেখানকার ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল।তিনি বলেন, কিন্তু পতঙ্গটি দ্রুত বিস্তার লাভের আগেই মৌসুমি বায়ু বঙ্গোপসাগর থেকে বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পৌঁছে গেছে। ওই

বাতাস পঙ্গপালের জন্য প্রতিকূল আবহাওয়া তৈরি করেছে। ফলে তাদের বাংলাদেশে আসার আশঙ্কা খুবই কম।এফএও বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ রবার্ট ডি সিম্পসন বলেন, এফএও থেকে বিশ্বজুড়ে পঙ্গপালের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ায় এই পতঙ্গের অবস্থান নিয়মিত তদারকি করা হবে।

আরও পড়ুন=বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল কোভিড-১৯ পরীক্ষার কিট ও কোভিড নিরোধক ওষুধ আমদানি, উৎপাদন ও ব্যবসায়ী পর্যায়ে মূল্য সংযোজন কর (মূসক) প্রত্যাহারের প্রস্তাব করেছেন। এর পাশাপাশি অর্থমন্ত্রী স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষার জন্য দেশে উৎপাদিত পিপিই ও সার্জিক্যাল মাস্ক উৎপাদন এবং ব্যবসায়ী পর্যায়ে মূসক প্রত্যাহারের

প্রস্তাব করেছেন।এছাড়া তিনি চিকিৎসা সামগ্রী জীবনুমূক্তকরণে ব্যবহার্য অটোকেলেভ মেশিন স্থানীয়ভাবে উৎপাদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাঁচামাল আমদানিতে রেয়াতি সুবিধা প্রবর্তনের প্রস্তাব করেন। একইসাথে বৈশ্বিক দুর্যোগকালে জনগনের মানসিক স্বাস্থ্য ও মনোবল অটুট রাখতে মেডিটেশন সেবার ওপর মূসক অব্যাহতি বলবৎ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছরুউল্লেখ্য, এর আগে করোনাভাইরাস টেস্টিং কিট, মাস্ক ও ব্যাক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী পিপিই আমদানি এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক ও পিপিই উৎপাদনে প্রয়োজনীয় কাঁচামাল আমদানির ওপর সমুদয় আমদানি শুল্ক মওকুপ করে সরকার।

Sharing is caring!